সাধারণ

জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের সাথে খাগড়াছড়ি উদ্যোক্তা ফোরামের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

 

নিজস্ব প্রতিবেদক:  জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের সাথে নব গঠিত খাগড়াছড়ি উদ্যোক্তা ফোরামের মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২রা ফেব্রুয়ারী বুধবার সকাল ১১ ঘটিকায় খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ‘‘আর নয় চাকরির অপেক্ষায় সাহসী উদ্যোক্তা হবো বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায়’’ এই মূল মন্ত্রকে ধারন করে সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী নতুন নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টি করন ও অমিত সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিনত হওয়ার লক্ষ নিয়ে উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্প চালু করে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বিনিয়োগ প্রসারে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন র্কতৃপক্ষ এরই মধ্যে শেষ করেছে উদ্যোক্তা সৃষ্টি ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রকল্পের ( ঊঝউচ) পরিচালিত এক মাসের প্রশিক্ষন র্কমসূচি। দেশের ৬৪ জেলায় প্রায় ২৪ হাজার উদ্যোক্তা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে । পাহাড়ের জেলা খাগড়াছড়িতে ৩৭৫ জন ১৫টি ব্যাচে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় পরিচালিত ও বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সহযোগীতায় ঊঝউচ প্রকল্পের সমাপ্ত হয়। প্রকল্প সমাপ্ত হলেও স্ব স্ব জেলার জেলা প্রশাসকগণ এই প্রকল্পের অধীনে উদ্যোক্তাদের দায়িত্বে রয়েছেন। ইতিমধ্যে সারাদেশের জেলা বিভাগীয় ও জাতীয় কমিটিও সম্মেলন এর মাধ্যমে শুরু হয় বাংলাদেশ উদ্যোক্তা ফোরামের অগ্রযাত্রা। তারই ধারাবাহিকতায় খাগড়াছড়ি শহরের মহাজন পাড়াস্থ্য এফ এন এফ রেস্টুরেন্টে ই এস ডি পি প্রশিক্ষন প্রাপ্ত উদ্যোক্তা এবং সফল উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে একটি আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। করোনা সংকটের কারনে কমিটির আহবায়ক সুজন চাকমার নেতৃত্বে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ^াস এর কার্যালয়ে পরিচিতি সভা ও সাধারন মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মত বিনিময় সভায় জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ^াস উদ্যোক্তাদের সাংগঠনিক ভাবে কাজ করা এবং নিজেদের উদ্যোক্তা জ্ঞানকে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিয়ে ঐক্যের ভিত্তিতে কাজ করার পরামর্শ দেন। উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনে সরকার যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু কাজ করতে বদ্ধপরিকর।
এসময় খাগড়াছড়ির উদ্যোক্তা ফোরামের যগ্ম আহবায়ক হ্লাশিং মং চৌধুরী বলেন, পাহাড়ের ভূমি ব্যবস্থাপনা যেহেতু সমতলের চেয়ে ভিন্নতর তাই সহজ শর্তে ভূমির মডগেজ বিহীন ঋন দানের ব্যবস্থা করা হলে পাহাড়ের উদ্যোক্তারা সফলতার স্বাক্ষর রাখতে পারবে। এ সময় জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ^াস বলেন, কৃষি ঋণ যাতে কৃষকরাই পায় তা নিশ্চিত করা এবং পাহাড়ের ভূমি ব্যবস্থাপনা আলাদা হওয়ার কারণে ঋণ পেতে একটু জটিলতা তৈরী হচ্ছে। তবুও ভূমির মডগেজ ছাড়া নূন্যতম ঋণ সুবিধার জন্যে আমার পক্ষ থেকে যতটুকু করার দরকার ততটুকু সহযোগীতা করতে চেষ্টা করবো। এ সময় উদ্যোক্তা ফোরামের অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদস্য সচিব মো: আশেক উল্লাহ, বীনা রানী ত্রিপুরা , ইঞ্জিনিয়ার মো মনির হোসেন, অমল ত্রিপুরা, মীর হোসেন মাসুদ, জান্নাতুল ফেরদৌস ও রাজু চাকমা প্রমূখ।

 

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button