সাধারণ

গরুর মাংস রাখার অভিযোগে ভারতে ৩ মুসলিমকে নির্যাতন

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : গরুর মাংস রাখার অভিযোগে এক মুসলিম দম্পতিসহ তিন জনকে গাছে বেঁধে বেধড়ক মারধর করেছে ভারতের গো-রক্ষক নামের সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে পাঁচ জনকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ।

ঘটনার বিস্তারিত সম্পর্কে জানা যায়, মধ্যপ্রদেশের একটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই মুসলিম দম্পতি ও অপর এক ব্যক্তিকে মারধরের ঘটনা মোবাইল ফোনে ধারন করেছে এক প্রত্যক্ষদর্শী।
প্রত্যক্ষদর্শীর ধারন করা ভিডিও’র বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায় , একদল অজ্ঞাত ব্যক্তি ‘জয় শ্রীরাম’ বলে এক নারীকে তার মাথায় স্লিপার দিয়ে মারধর করছে এছাড়া আরো দুই মুসলিম ব্যক্তিকে গাছের সঙ্গে বেঁধে ক্রমাগত পেটাতে থাকে ওই অজ্ঞাত ব্যক্তিরা।

ললিত শাকিভার নামে স্থানীয় এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ঘটনার ওই ভিডিওটি চার দিন আগের এবং চার জনকে গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠানো হয়েছে।এছাড়া ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরো একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই ঘটনায় অভিযুক্ত শুভম সিংহ নামের এক ব্যক্তি নিজেকে ‘রাম সেনা’ হিসেবে উল্লেখ করে তার ফেসবুকে মুসলিম দের মারার ভিডিও পোস্ট করে। অবশ্য পরবর্তীতে তা সরিয়ে নেয়।

পুলিশ জানায়, গত ২২ মে ২জন মুসলিম পুরুষ ও একজন নারী এক অটোরিক্সায় করে যাচ্ছিলো, পথিমধ্যে একদল ব্যক্তি তাদের অটোরিক্সায় গরুর মাংস রাখার অভিযোগে মারধর করে।

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button