খাগড়াছড়িশীর্ষ সংবাদ

উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটিকে তৃণমূলের প্রত্যাখ্যান

 মানিকছড়ি প্রতিনিধি : খাগড়াছড়ি’র মানিকছড়িতে নবগঠিত আহবায়ক কমিটি বাতিলের দাবীতে বিএনপির একাংশ সংবাদ সম্মেলন করেছে। দীর্ঘ ৬ বছর পর খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলা বিএনপির’র আহব্বায়ক কমিটি গঠন করা হলো। ২০১৬ সালে গঠিত মানিকছড়ি উপজেলা বিএনপি’র দীর্ঘ দিনেও দলকে সুসংগঠিন ও ঐক্যবদ্ধ করতে চাইলেও নানা কারণে ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন করতে একাধিকবার ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন। তাছাড়া প্রতিনিয়ত দলের অভ্যান্তরে বিভাজন সৃষ্টি হওয়ায় বর্তমান কমিটিকে ভেঙ্গে দীর্ঘ ২১ বছর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা মো. এনামুল হক এনাম’কে আহবায়ক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি। কমিটিতে সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীদেরকেই বেশীরভাগ প্রাধাণ্য দেয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে পদবঞ্চিত দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত থাকা নেতাকর্মীদের মধ্যে। যার ফলে ঘোষিত কমিটিকে একতরফা দাবী করে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের নিয়ে বিএনপি’র পদবঞ্চিত শীর্ষ নেতাদের একাংশ উক্ত কমিটি প্রত্যাখ্যান ও আহ্বায়ককে অবাঞ্চিত ঘোষণা দিয়ে সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ১০টায় দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য রাখেন সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সভাপতি এম. এ করিম। এ সময় সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি মো. আরব আলী, মো. মুজিবুল হক বাহার এবং ঘোষিত কমিটির সদস্য মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, ইব্রাহীম খলিল আল ফরিদীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের প্রায় তিনশতাধিক নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। লিখিত বক্তব্যে এম. এ করিম বলেন, উপজেলা বিএনপির ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন কমিটি গঠনের চলমান কার্যক্রমে দলের বির্তকিত নেতা ও বর্তমান কমিটির আহবায়কের অনুসারীদের পরাজয় দেখে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ ওয়াদুদ ভূঁইয়াকে ভুল বুঝিয়ে ও তৃণমূল নেতকর্মীদের কোনো মতামত না নিয়ে এবং বিএনপি’র গঠনতন্ত্র উপেক্ষা করে গত ২০ জানুয়ারি একতরফা একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে জেলা বিএনপি। এ কমিটিতে দলের সঙ্গে জড়িত থাকা দীর্ঘনের বহু ত্যাগী ও নির্যাতিত নেতাকর্মীরা বাদ পড়েছেন। এটি একটি পকেট কমিটি। আমরা এই কমিটিকে প্রত্যাখ্যান ও আহ্বায়ককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি এবং আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গঠিত এক একতরফা কমিটি বাতিলের দাবী জানাচ্ছি। অন্যথায় আগামীতে আরও বড় ধরণের কর্মসূচী ঘোষণা করার কথা জানিয়েছেন এ নেতারা।
Show More

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

Back to top button