অমিক্রন মোকাবিলায় যেসব প্রস্তুতি নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন অমিক্রন মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকার নতুন নতুন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে বলে ঘোষণা করেছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেন, অমিক্রন মোকাবিলায় টিকা কর্মসূচি জোরদার করা হবে এবং করোনার পরীক্ষাকেন্দ্র বাড়ানো হবে। এ ছাড়া জানুয়ারি থেকে করোনা পরীক্ষার ৫০ কোটি র‍্যাপিড কিট বিনা মূল্যে দেওয়া হবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, বাইডেন একই সঙ্গে সতর্কবার্তা ও নিশ্চয়তা—দুটিই দিয়েছেন। তিনি বলেন, যাঁরা টিকা নেননি, তাঁদের জন্য বিষয়টি উদ্বেগের। আর যাঁরা টিকা নিয়েছেন, অমিক্রন ধরন ছড়ানো শুরুর পরও তাঁরা বড়দিনের ছুটিতে একত্র হয়ে বিভিন্ন আনন্দ আয়োজনে অংশ নিতে পারবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের অমিক্রনসহ সার্বিকভাবে করোনার সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বিভিন্ন শহর ও অঙ্গরাজ্য বিধিনিষেধ আরোপ করতে শুরু করেছে। এ প্রসঙ্গে বাইডেন বলেন, এবারের পরিস্থিতি ২০২০ সালের মার্চ মাসের মতো হবে না। হোয়াইট হাউসে উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘২০ কোটি মানুষ দুই ডোজ নিয়েছেন। আমরা প্রস্তুত। তখন আমরা যা জানতাম, তার চেয়ে এখন আরও বেশি জানি।’

তবে একই সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্কদের নিয়ে সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেছেন বাইডেন। কারণ, এই বয়সীদের প্রতি চারজনে একজন টিকা নেননি। তিনি বলেন, এই ব্যক্তিদের করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে যাওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি। এমনকি মৃত্যুঝুঁকিও বেশি।

এদিকে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে করোনা টিকার বুস্টার ডোজ নিয়েছেন, সে বিষয়ও সামনে এনেছেন বাইডেন। তিনি বলেন, ‘হয়তো অল্প কিছু বিষয়ে তিনি (ট্রাম্প) ও আমি একমত।’

যুক্তরাষ্ট্রের করোনার হটস্পট হিসেবে বিবেচনা করা হয় নিউইয়র্ক শহরকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এ শহরে পপআপ টিকা ক্লিনিক চালু করা হচ্ছে। চালু করা হচ্ছে করোনার নতুন পরীক্ষাকেন্দ্র। বাইডেন বলেন, যেসব হাসপাতালে করোনা রোগীর সংখ্যা বেশি, সেখানে দেশের সামরিক বাহিনীর এক হাজার ডাক্তার, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীরা ইতিমধ্যে কাজ করছেন।

সামঞ্জস্যপূর্ণ সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।