জাতীয়করনের দাবীতে পার্বত্য বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

দেব প্রসাদ ত্রিপুরা : বিশ^ শিক্ষক দিবসে খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবান জেলার বিভিন্ন উপজেলাধীন অনগ্রসর ও দূর্গম এলাকার যাচাই-বাছাই ও যাচাই-বাছাই বিহীন ২৯২টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত শিক্ষকদের বিশেষ বিবেচনায় জাতীয়করণের দাবীতে মানববন্ধন হয়েছে। ৫ অক্টোবর মঙ্গলবার খাগড়াছড়ি কোর্ট এলাকায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধন শেষে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে স্মারক লিপি প্রেরন করে তিন পার্বত্য জেলা বে-সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি।

মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, তিন পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক মো: জাহাঙ্গীর আলম। এসময় শিক্ষক সংগঠনটির সভাপতি জ্যোতি ত্রিপুরা মানব বন্ধনে বলেন, ‘‘তিন পার্বত্য জেলার বে-সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর জাতীয়করন না হওয়া পর্যন্ত জেলা পরিষদ থেকে সম্মানী ভাতা চালু করার জন্য দাবী জানাই।’’
প্রধান অতিথি এ্যাড. মো: জসিম উদ্দিন মজুমদার বলেন, সুশিক্ষিত মানব গড়ার কারিগর শিক্ষকদের সম্মানে তিন পার্বত্য জেলার দূর্গম পাহাড়ী অঞ্চলে অবস্থিত ২শত ৯২টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করনের আওতায় এনে পাহাড়ে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠিকে সুশিক্ষিত করার সুযোগ করে দেয়ার জন্য সরকারের কাছে দাবী জানাচ্ছি।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, তিন পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির উপদেষ্টা ও খাগড়াছড়ি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাংবাদিক চাইথোয়াই মারমা। তিন পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক সুজল চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির আইন বিষয়ক সম্পাদক মো: মিজান উদ্দিন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক চন্দনময় তংচঙ্গ্যা। খাগড়াছড়ি জেলা বেসরকরী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক চাইহ্লাউ মারমার সঞ্চালনায় মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন তিন পার্বত্য জেলা বে-সরকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি জ্যোতি ত্রিপুরা।

উল্লেখ্য, ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথমে ৩২ হাজার এবং পরবর্তী সময়ে বঞ্চিত আরও ৪,১৬০ টিসহ মোট ৩৬,১৬০ টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় জাতীয়করণ ও কর্মরত শিক্ষকদের চাকুরি সরকারিকরণ করেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালে ২৬,১৯৩ টি বে-সরকারি প্রথামকি বিদ্যালয় এবং ২০১৭ সালে তিন পার্বত্য জেলায় “ইউএনডিপি” কর্তৃক পরিচালিত ২১০ টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ ও কর্মরত শিক্ষকদেরকে সরকারিকরণ করেন। কিন্তু জাতীয়করণ কালীন বিদ্যালয় পরিসংখ্যান তথ্য সঠিক না হওয়ায় তিন পার্বত্য জেলায় জাতীয়করণ যোগ্য যাচাই-বাছাই ও যাচাই-বাছাই বিহীন ২৯২টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত শিক্ষকগণ জাতীয়করণ হতে বঞ্চিত হন।
তাই তিন পার্বত্য জেলার বিভিন্ন উপজেলায় পাঠদানরত যাচাই-বাছাই ও যাচাই-বাছাই বিহীন ২৯২টি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কর্মরত শিক্ষক/শিক্ষিকাদের বিশেষ বিবেচনায় জাতীয়করণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয় মানববন্ধনে।

সামঞ্জস্যপূর্ণ সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

13 − 8 =