করোনা ভাইরাসের গণটিকা কার্যক্রম শুরু

মো: জাকের হোসেন : সারাদেশের ন্যায় খাগড়াছড়িতেও করোনা ভাইরাসের গণটিকা কর্মসূচি শুরু হয়েছে। ৭ আগস্ট শনিবার সকাল ৯টা থেকে দেশের ৪ হাজার ৬০০টি ইউনিয়ন, ১ হাজার ৫৪টি পৌরসভা এবং সিটি করপোরেশন এলাকার ৪৩৩টি ওয়ার্ডে একযোগে এ গণটিকা দান কর্মসূচি শুরু হয়। কাজ করছেন ৩২ হাজার ৭০৬ জন টিকাদান কর্মী ও ৪৮ হাজার ৪৫৯ জন স্বেচ্ছাসেবী। টিকা নিতে প্রতিটি কেন্দ্রেই মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। প্রতিটি কেন্দ্রেই মোতায়েন রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পরিস্থিতি সামলাতে কাজ করছেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ রেডক্রিসেন্টের সদস্য।

সরেজমিনে দেখা যায়, জেলা শহরের পৌর ৬নং ওয়ার্ডের শালবন টেক্সটাইলি ভোকেশনাল স্কুলে টিকাদান কেন্দ্রে কয়েক শতাধিক নারী-পুরুষ লাইনে দাঁড়িয়েছেন। সবার হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র। যুবক থেকে বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষই এসেছেন টিকা নিতে। এ কেন্দ্রে টিকার পরিমাণ দুইশত তাই অনেকেই হতাশ হয়ে ফিরে গেছেন।


৬ আগস্ট রাজধানীর মহাখালীতে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেছিলেন, ‘দেশে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সরকার সম্প্রসারিত আকারে শনিবার দেশব্যাপী ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আগামী ৭ই আগস্ট ২৫ বছর ও তদূর্ধ্ব জনগোষ্ঠীকে আমরা টিকাদান কর্মসূচির আওতায় আনতে যাচ্ছি। শনিবার দেশের সব ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা, সিটি করপোরেশন এলাকায় ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন শুরু হবে। ৮ ও ৯ আগস্ট ইউনিয়ন ও পৌরসভার বাদ পড়া ওয়ার্ডে এবং ৭ থেকে ৯ আগস্ট সিটি করপোরেশন এলাকায় টিকাদান কর্মসূচি চলবে। দুর্গম ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে ৮ ও ৯ আগস্ট ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রম চালু থাকবে।

সামঞ্জস্যপূর্ণ সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

seven + two =